স্বাধীন বাংলা বেতারের ৫৮ জন নাগরিক খেতাব লাভ

বাংলাদেশ সরকার আজ শব্দ সৈনিক” হিসেবে বাংলা বেতার কেন্দ্রের ৫৮ সদস্যকে স্বাধীন খতাব নামে পরিচিত।

বাংলাদেশ সরকার আজ শব্দ সৈনিক” হিসেবে বাংলা বেতার কেন্দ্রের ৫৮ সদস্যকে স্বাধীন খতাব নামে পরিচিত।

১৯৭১ সালে খেতাবপ্রাপ্তদের মধ্যে অন্তর্ভুক্তবপত্রে মহান লিখিত কালে ব্যাঙ্গাত্মক ও শ্লেষামক মন্তব্যে ভরপুর “চরম”-এর উপস্থাপক এমআর আতার মুকুল চিত্রপরিচালক এবং অভিনেতা সুভাষা, সঙ্গীত তিমির নন্দী এবং ফকির আলমগীর।

ন্যাশনাল ফ্রিডম ফাইটারস কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোনো বিষয় ঘোষণা করে এ সংক্রান্ত একটি আদেশ।

গত নভেম্বরে যুদ্ধকালীন এই তার কেন্দ্রের ১০৮ জন বন্ধুকে বেতার খেলাব দেওয়া হয়। আওয়ামী জনতা জনসংযোগ কালে এ পর্যন্ত ২৫৮ সৈনিককে এই সম্মানে ভূষিত করা।

জাতিকে স্বাধীনতা যুদ্ধে উদ্বুদ্ধ করে ও অনুপ্রেরণা জোগান। এছাড়াও, সে সময় সাংস্কৃতিক অনুশীলনের মাধ্যমে প্রতিবেশী ভারতে আশ্রয় নেওয়া শরণার্থীদের জন্য আর্থিক পরিস্থিতির ব্যবস্থা করেন।

১৯৭১ সালের ঘাটে ৩০ মার্চ তারিখে প্রচারি হাদার মিডিয়া চট্টগ্রামের সম্প্রচার কেন্দ্রে বোমা ফেলায় বাংলাতার কেন্দ্রের সম্প্রচার ৩ এপ্রিল আপত্রিপুরা থেকে মনে হয়। তিনি, ২৫ মে ত্রিপুরা থেকে বেতার কেন্দ্রটি কলকাতায় স্থানান্তর করা হয়।

উৎস লিঙ্ক

এছাড়াও পড়ুন  গ্যাংস্টার মুখতার আনসারির মৃত্যুর পর উত্তরপ্রদেশের আলিগড়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে