রাজশাহীতে একের কীর্তি!

কাপড়ে মোড়ানো বেওয়ারিশ এক শিশু মরদেহ পার্দেহ সযত্নে দিখ্লমাগর একটি সন্ত্রাস। মানুষের অপেক্ষা আপনার কাছে না পর্যন্ত সেখানেই খুঁজে পেয়েছে। গত শনিবার সন্ধ্যায় রাজশাহীর গণগ্রেগারের সামনের এই ঘটনাটি।

ফটো

“>

ফটো

কাপড়ে মোরগিং বেওয়ারিশ এক শিশু মরদেহ পার্দেহ সযত্নে দিখ্লমাগর একটি সন্ত্রাস। মানুষের অপেক্ষা আপনার কাছে না পর্যন্ত সেখানেই খুঁজে পেয়েছে। গত শনিবার সন্ধ্যায় রাজশাহীর গণগ্রেগারের সামনের এই ঘটনাটি।

দক্ষিণ এলাকাবাসী ফজলে রাব্বি জানান, জীবিত বা মেড ছিল জীবিতার কাছে শিশুর গুরুত্ব। পশুটি যত্নের সঙ্গে শিশুটির দেহ নর্দমা থেকে টেনে প্রকাশের প্রকাশনা অংশ ছিল।

কুকুরটি জানা কীলে, সাংবাদিক পথচারীদের কৌতূহল গঠন করে। পথ তারা সেখানে অপরিণত শিশুর দেহ করেন। শিশুটি সামনে রয়েছে বেশ কয়েকটি চেষ্টা করছেন। কেউ আবার খবর দেন।

উপস্থিত অংশগ্রহণের মনের জন্য বেশ মায়া হয়। কী মমরিতে ছিল মৃত শিশুর আগমন। কিন্তু আমার কাছে জড়ো হয়ে যাওয়ার পরে সবার অলক্ষ্যে জায়গা ছেড়ে বেরিয়ে যায় শিকারটি। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার দেখা মেলেনি।

রাজশাহী কমার্স একজন একজনকে বলেন, “আমি প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে চাই। কিন্তু যারা এমন কুৎসিত কাজ করেছে, তাদের প্রতি ঘৃণা প্রকাশ করছি৷

শিশুর জায়গায় রাখা হয়েছে যেখানে সেখানে অনেকগুলো ক্লাসিক ও ব্যবসা রয়েছে।

সময় গণগ্রেগার প্রাঙ্গনে কাজ করছিলেন সেলিম রেজা। মহিলা সাইনবোর্ড রেজার আশা, পুলিশ দ্রুত অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবে। তিনি বলেন, 'একটি সুন্দর শিশু মহানগর প্রকাশনা পড়ে আছে; এই দৃশ্য ভয়ঙ্কর৷

রাজশাহীর রাজপাড়া উপ-দর্শক মাহফুজুর রহমান জানান, যতটা সম্ভব সম্ভব তারা প্রার্থী আসতে পেরেছেন। মরদেহটি রাজশাহী মহানগরে ময়নাতদন্তের জন্য বঙ্গ হয়েছে।

এছাড়াও পড়ুন  শুভ হোলি 2024: ছবি, উপস্থিতি, শুভেচ্ছা, বার্তা, কার্ড, ছবি, এবং GIF - টাইমস অফ রাজ্য ব্রেকিং নিউজ | আজকের সর্বশেষ খবর

তিনি জানান, “অবাক মতন সেই শিশুর শরীরে শরীর করার কামড়ের কোন চিহ্ন নেই। দীর্ঘক্ষণ নর্দমার পানিতে পড়ে বলে আমাদের শেয়ারটি খসে পড়ছিল।

পার্টি ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমানত বলেন, শিশু মরদেহ রাজশাহী, গগের মর্গে রাখা হয়েছে। শিশুর ডিএনএ নমুনা নিয়ে রাখা হয়েছে। কেউ না দাবি করতে ডিএনএ পরীক্ষা করে তার মা-বাবাকে চেষ্টা করার চেষ্টা করতে হবে।

এ বিষয়ে পুলিশের কাজ কি তা জানতে চাওয়া-পরিদর্শক মাহফুজুর উপস্থাপক দ্য ইলিস্টারকে বলেন, সামনের একটি অস্বাভাবিক অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। পুলিশ খোঁজ নিচ্ছে যে শিশুটির মা আশে-পাশের কোন ক্লিনিক বা দলের সক্রিয় হচ্ছেন। এছাড়াও, শিশুটির ময়নাদন্তের লিখাটি এলে জানা যাবে তাকে জানাতে হবে, জন্মের সময় মৃত্যু হয়েছিল।

এই খবরের ইংরেজি সংস্করণ পড়তে এখানে ক্লিক করুন

উৎস লিঙ্ক