এই পত্রিকার প্রতিবেদক: আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জার্মানির বার্গারহাউস গার্চিংয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য আয়োজিত এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সহ নাগরিকদের ভাগ্য নিয়ে যে কোনো ষড়যন্ত্র থেকে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।


এছাড়াও পড়ুন: রমজানে কোনো অভাব হবে না


এ সময় তিনি কোনো বিদেশি বাংলাদেশি যেন দেশকে স্বাধীনতাবিরোধী রাষ্ট্রে পরিণত করে দেশকে পিছিয়ে ঠেলে দিতে না পারে সে বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।


শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে জার্মানির মিউনিখে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, “আমরা বাংলাদেশকে সমৃদ্ধির পথে নিয়ে যাচ্ছি। অবশ্যই এই অগ্রগতি অব্যাহত থাকবে। সতর্ক থাকুন কেউ যেন এই দেশকে পেছনের দিকে না নিয়ে যায়, ঘুরে দাঁড়ায়। এটা রাজাকা জাতির দেশে।


এছাড়াও পড়ুন: চ্যান্সেলর মিউনিখে যাচ্ছেন


শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে একটি ধর্মনিরপেক্ষ দেশ হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠাতা পিতার বাংলাদেশকে আমরা মুক্তিযুদ্ধ ও অ-সাম্যবাদের চেতনায় সমৃদ্ধ, উন্নত ও বুদ্ধিদীপ্ত সোনার বাংলাদেশে গড়ে তুলব। “আমি কখনই ভাবি না আমার কী দরকার, তবে দেশ ও জনগণের উন্নতির জন্য আমি কী করতে পারি।


তিনি বলেন, বিএনপি জনগণকে ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত করেছে এবং কারচুপির মাধ্যমে নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করেছে। দীর্ঘ সংগ্রামের পর আওয়ামী লীগ জনগণের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিয়েছে।


এছাড়াও পড়ুন: পাতাল রেল পরিকল্পনা অনুযায়ী চালানো হয়নি


প্রধানমন্ত্রী বলেন, 1975 সালের পর দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ছিল সবচেয়ে অবাধ, সুষ্ঠু ও সবচেয়ে বিশ্বাসযোগ্য। গত সংসদ নির্বাচনে দেশের মানুষ বিশেষ করে নারীরা নির্বিঘ্নে ভোট দিয়েছে। আওয়ামী লীগ এবার ক্ষমতায় না এলে ২০০৯ সাল থেকে বিগত ১৫ বছরে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হবে। লুটেরা (বিএনপি) সব লুট করেছে।

এছাড়াও পড়ুন  জাতীয় বিজ্ঞান দিবস: রমন প্রভাব, যার জন্য সিভি রমন নোবেল পুরস্কার জিতেছেন


প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করছি এবং এর জন্য দক্ষ মানবসম্পদ তৈরি করছি। তার সরকার বাংলাদেশকে ডিজিটালাইজড করেছে এবং আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী ২০৪১ সালের মধ্যে দেশকে একটি উন্নত, সমৃদ্ধ ও স্মার্ট বাংলাদেশে রূপান্তর করবে। সূত্র: বাথ।


সান নিউজ/এএন

কপিরাইট © সান নিউজ 24×7



Source link