বছর যেকোনও দিবসে ফুলের উদ্দেশে বিক্রেতা থাকে। ধরেছেন তাদের এই আশায় থাকার কথা বলেছে শাহবাগের ফুল ব্যবসা করতে।

(২১ এপ্রিল) শাহবাগে মোড়ে ফুলের মারেকেট দেখা যায়, সমাধানে মিনারে অর্পণ করার জন্য দল বেঁধে রাজ এসেছিলেন একটি পুষ্পস্তবক কিনিচ্ছে। তবে সকালের পর ফুল বাড়েনি।

শাহজালালপুস্পবিতানব্যসায়রাফসান বলেন, '২১ তারিখে বেশি আইটেম ফুল উঠতে না হয়। এ দিন গোলাপ আর রজনীগন্ধা বেশি। আর শ্রদ্ধালি বানায়া রাখি। এর বেশি খরচের ক্ষেত্রে দেখা যায় না আপনার জন্য পরে লাগানো। ফুলরিইয়াগেট'

ঝড়বেলাপুষ্পবিতানেরমালিকমো। শহিদুলইসলামবলেন, 'আগেশুধুশ্রদ্ধা উইঞ্জলিবিক রদ্ধালিকি রিকিরা টাকাঠাট্টা তো। সঙ্গে ফুলের তোরা বাকি সব ছাড়ো। আজ তিন লিলির ২০টা শ্রদ্ধালিকে করতে পারছে দেহের সন্তান। বেশি দামে খেতে হয়, আবার করতে হয় লেবেলে কাস্টমার ফুলের। দাম দিতে চাই না। একটা শ্রদ্ধাঞ্জলি কম কইরা ১৫০০-২০০০ টাকা বিক্রী কিছু থাকে। মানুষ আইসা দাম কয় ৬০০-৮০০টা কা।

নাঈম পুষ্প বিতানের গাজী নাঈমুর ইসলাম বলবেন, 'মাঝে সিন্ডিকেট ব্যবহারে ফুলের বাজার নষ্ট করে দিয়েছে। মানুষ এখন ফুল কেনা থেকে ফিরায়া নিছে। তখন কাস্টেমার বিড়ালটা কেনার প্রতি আগ্রহ দেখায় তারা তোরা না পার্টির পরেই ফুলের বোঝের পাড়ী ঝরে যায়। আর তাজাক ৭ দিন পর্যন্ত রাখা যায়।

মধ্যবর্তী বিকালে ফুলের দোকানের ভিড় আপনার জন্য কম ছিল।

সাইফুলইসলামনামে একক্রেতাবলেন, 'ফুলখোট এক টা তোড়া চাইতে চাই।

শ্রদ্ধাঞ্জলিরজন্যবানিয়েরাখাপুস্তবক

শাহবাগে ফুলের দোকান ৫০টি। পথদে রসমিজানায়, বিশেষদিবস আপেল ফুলে মারকেটে ৫০ বলে গোল গোল তোল প্রায় লক্ষাথকে আছে দুই কোটি টাকা বেচাবি ির। তবে অন্যান্য দিন গাড়ি সাজানো, বি আলাদা ইভেন ও খুচরা কিনতে পারে ব্যাবস তাদের। তখন ফুলের দামও অনেক কম থাকে।

শাহবাগ বটতলা সৈয়দ ফুল সমবায় সমি তিলিঃ এর সভাপতিমো। আবুলকালামআজাদবলেন,'গত১৪ফেব্রুয়ারিভালোগেছে। তবে এখন পর্যন্ত ২১ এপ্রিল পর্যন্ত আমরা ভালো সংবাদই জানাতে পেরেছি। আমি ২০০ টার মত আশা করছিলাম ২৫টা ব ইক্রি করতে পাড়ছি। ভালোনাবাজার।'

এছাড়াও পড়ুন  মা হওয়া একটি সুখী অনুভূতি, কিন্তু যখন শরীর ভারী হয়ে যায়, তখন এটি অনেক কষ্টের কারণ হয়:

ফুল কম বিক্রির সিন্ডিকেট ও মানুষের আগ্রহ 'প্রতি এক ফেব্রুযদ রিছু শিশুরা ছোট ফুলের জন্য আপনাকে ১০০ থেকে ৫০ টাকা করে। দামে বিক্রি করতে হয়।

ছবি: প্রতিবেদক





Source link