ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী সুব্রামানিয়াম জয়শঙ্কর এবং তার বাংলাদেশি প্রতিমন্ত্রী মুহাম্মদ হাসান মাহমুদের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নয়ন ও শক্তিশালীকরণের ওপর জোর দেওয়া হয়। উগান্ডার রাজধানী কাম্পালায় জোট নিরপেক্ষ আন্দোলনের শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে এই বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়, যেখানে অনেক দেশের নেতাদের অংশগ্রহণের সাক্ষী ছিল।

ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের প্রশংসা করে, ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রী সম্পর্কটিকে “শক্তি থেকে শক্তির দিকে এগিয়ে যাওয়া” হিসাবে বর্ণনা করেছেন, যা তাদের জনগণের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধি এবং বন্ধুত্বকে গভীর করার জন্য দুই দেশের প্রতিশ্রুতি প্রতিফলিত করে। এই প্রেক্ষাপটে, জয়শঙ্কর বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগের জন্য মুহাম্মদ হাসান মাহমুদকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

এই সফর বাংলাদেশে রাজনৈতিক পটপরিবর্তনের প্রেক্ষাপটে এসেছে, যেখানে এই মাসে নতুন সরকার ক্ষমতা গ্রহণ করেছে। দুই মন্ত্রীর মধ্যে এই প্রথম সফরে যোগাযোগ বৃদ্ধি এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতার উন্নয়নে দুই দেশের ইচ্ছা প্রতিফলিত হয়।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শীঘ্রই ভারতে একটি সরকারী সফরের কথা রয়েছে, যা তিনি 7 ফেব্রুয়ারি দায়িত্ব গ্রহণের পর এই ধরনের প্রথম সফর। আশা করা হচ্ছে এই সফর দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা বাড়াতে এবং বাণিজ্য, অর্থনীতি ও সংস্কৃতি সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি সক্রিয় করতে অবদান রাখবে।

ভারত ও বাংলাদেশের সম্পর্ককে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আঞ্চলিক সম্পর্কের মধ্যে বিবেচনা করা হয় এবং দুই দেশের মধ্যে সংহতি ও ফলপ্রসূ সহযোগিতার সাক্ষ্য বহন করে। এই উচ্চ-পর্যায়ের বৈঠকগুলি এই অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রচারে এবং টেকসই উন্নয়ন এবং তাদের জনগণের মঙ্গল অর্জনে যৌথভাবে কাজ করার জন্য ভারত ও বাংলাদেশের প্রতিশ্রুতি প্রতিফলিত করে।

এছাড়াও পড়ুন  সুন্দরবনে হেলিকপ্টারে পানি চিটানোহচ্ছে, পুরি নেভেনি আগুন