মঙ্গলবার, ২৬-মার্চ ২০১৯, ১২:১২ অপরাহ্ন
  • অন্যান্য
  • »
  • নিয়মিত টাকা না পেয়ে ঘনিষ্ঠ ছবি প্রকাশ করল প্রেমিকা, অতপর…

নিয়মিত টাকা না পেয়ে ঘনিষ্ঠ ছবি প্রকাশ করল প্রেমিকা, অতপর…

Sheershakagoj24.com

প্রকাশ : ০২ নভেম্বর, ২০১৮ ০৭:০৮ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ ডেস্ক : সুমন মণ্ডল। ১৯ বছর বয়সী এই তরুণের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে শারিকা জানা নামের এক বিবাহিত তরুণীর। তাদের মধ্যে বিয়ের কথাও হয়। সেই সম্পর্ক থেকেই দুজন একাধিকবার কক্ষ ভাড়া করে রাত্রিযাপন করেন। সুমনের থেকে নিয়মিত টাকা নিতেন শারিকা। একসময় সুমনের থেকে টাকা না পেয়ে তাদের ঘনিষ্ঠ ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেন ওই তরুণী। সেই ছবি ছড়িয়ে পড়ে পরিবারের সদস্যসহ অনেকের মাঝে। এরপর আত্মহত্যা করেন সুমন। পুলিশ বলছে, সম্প্রতি ওই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিষ্ণুপুরে।  

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি-নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিষ্ণপুরের বগাখালি নিশিকান্ত পোলের বাসিন্দা সুমন মণ্ডলের বোনের শ্বশুরবাড়ি দক্ষিণ ২৪ পরগনার মহেশতলায়। বোনের শ্বশুবাড়িতে গিয়েই প্রথম পরিচয় হয় শারিকা জানার সঙ্গে। এরপর মুঠোফোনে কথার একপর্যায়ে তারা একে অপরের ঘনিষ্ট হয়ে ওঠেন।   

নিহত সুমনের পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, সম্পর্ক গভীর হতেই সুমনের কাছ থেকে দফায় দফায় টাকা চেয়ে চাপ দেন শারিকা। একইসঙ্গে বিয়ের জন্যও সুমনকে চাপ দিতে থাকেন তিনি। কিন্তু বিয়েতে প্রথমে রাজি ছিলেন না সুমন। এ কারণে তাকে পুলিশে দেওয়ারও হুমকি দেন শারিকা। এরপর জোর করে সুমনকে নিয়ে দীঘায় যান শারিকা। সেখান থেকে ফিরে প্রথমে বেলঘরিয়া ও তারপর মহেশতলা বাটায় কক্ষ ভাড়া নিয়ে থাকতে শুরু করেন তারা।

সুমনের বাড়ির লোকজন আরও জানায়, একপর্যায়ে শারিকার চাপে বিয়েতে রাজি হন সুমন। বিয়েতে মত দেওয়ার পর শারিকা আবার সুমনের কাছ থেকে পাঁচ হাজার টাকা চেয়ে বসেন। এবার সেই টাকা দিতে অস্বীকার করেন সুমন। টাকা না দিতেই সুমনকে ব্ল্যাকমেইল করতে থাকেন শারিকা। সুমনের সঙ্গে সমস্ত ঘনিষ্ঠ ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেন শারিকা। বিবাহিত তরুণীর সঙ্গে সম্পর্কের কথা সামনে আসতেই আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধুমহলে চূড়ান্ত অপমানের শিকার হন সুমন। এর জেরে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন তিনি। এরপরই গত শনিবার সকালে বাড়ির অদূরে বাগানের মধ্যে উদ্ধার হয় সুমনের ঝুলন্ত লাশ।

পুলিশ জানায়, গলায় ওড়না জড়িয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন সুমন। এই ঘটনায় প্রেমিকা শারিকার বিরুদ্ধে বিষ্ণুপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে নিহতের পরিবার। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ।
শীর্ষনিউজ/এসএসআই