মঙ্গলবার, ২০-নভেম্বর ২০১৮, ০৬:৪৫ পূর্বাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • পাবনায় যুবকের ক্ষতবিক্ষত, সুনামগঞ্জে ব্যবসায়ীর গলাকাটা লাশ

পাবনায় যুবকের ক্ষতবিক্ষত, সুনামগঞ্জে ব্যবসায়ীর গলাকাটা লাশ

Shershanews24.com

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর, ২০১৮ ১০:৫১ পূর্বাহ্ন

শীর্ষনিউজ ডেস্ক: সুনামগঞ্জ ও পাবনায় দুজনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার পূর্ব বাংলাবাজার এলাকা থেকে এক ফ্লেক্সিলোড ব্যবসায়ীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের নাম মো. তৌহিদ মিয়া (৩০)। তার বাড়ি কলাউড়া গ্রামে।
বাংলাবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসীম উদ্দিন আহমদ রানা জানান, মো. তৌহিদ মিয়া কলাউড়া বাজারের দীর্ঘদিন ধরে ফ্লেক্সিলোডের ব্যবসা করে আসছিলেন। তারা তিন ভাই। আজ শুক্রবার (৯ নভেম্বর) ভোরে ইউনিয়ন পরিষদের গলির সামনের সড়কে লোকজন তার লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। লাশের গলাকাটা ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।
দোয়ারাবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুশীল রঞ্জন দাস বলেন, ‘ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। হত্যার কারণ জানার চেষ্টা চলছে। এ বিষয়ে তদন্ত করে পরে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।’
এদিকে পাবনার আতাইকুলায় সোহেল হোসেন (২২) নামে এক যুবকের ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (৯ নভেম্বর) সকাল ৮টার দিকে মধুপুর মাদ্রাসা রোড়ের একটি মাঠ থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। তাকে শ্বাসরোধ ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে পুলিশ ধারণা করছে।
নিহত সোহেল সদর উপজেলার আতাইকুলা থানার মধুপুর গ্রামের হেলাল মিয়ার ছেলে। আগে তাদের বাড়ি ছিল প্রত্যন্ত গ্রামে। কৃষিকাজের পাশপাশি রাজমিস্ত্রির কাজ করতেন সোহেল।
আতাইকুলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) রাতে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরেনি সোহেল। শুক্রবার সকালে স্থানীয়রা মধুপুর মাদ্রাসা রোড়ের একটি মাঠে সোহেলের মৃতদেহ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
ওসি আরও জানান, নিহতের গলায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন দেখে ধারণা করা হচ্ছে, তাকে শ্বাসরোধে হত্যার পর ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে মৃত্যু নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে কারা কী কারণে তাকে হত্যা করেছে সেটা জানা যায়নি।
শীর্ষনিউজ/এনএস